করোনায় চুমু দিয়ে রোগ সারানো তান্ত্রিকের মৃত্যু, বিপদে ভক্তরা

ভারতের মধ্যপ্রদেশের এক তান্ত্রিক। ঝাড়ফুঁক করে কোভিড-১৯ বা করোনা রোগীকে সারিয়ে দেওয়ার দাবি করতেন তিনি। তার রোগ সারানোর উপায় ছিল লোকের হাতে চুম্বন করা। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে সেই তান্ত্রিকের। তারপরই তার সংম্পর্শে আসা লোকজনের খোঁজ শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। দেখা যায়, সেই ব্যক্তিদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২০ জনেরও বেশি। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা ও জি নিউজ।

ঐ তান্ত্রিক থাকতেন মধ্যপ্রদেশের রতলামে। ঝাড়ফুঁক করাই ছিল তার পেশা। নিজের ভক্ত ও তার কাছে আসা ব্যক্তিদের হাতে চুম্বন করতেন তিনি। সেই চুম্বনই সব রোগ দূর হতো বলে তিনি দাবি করে আসছিলেন। এই চুম্বন নাকি কোভিড-১৯ থেকেও বাঁচতে সাহায্য করবে, এমনই দাবি ছিল তার।

স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীরা জানান, গত ৩ জুন তাঁর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। তার পরের দিন মারা যান তিনি। তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের খোঁজ শুরু হয়। এ রকম প্রায় ৪০ জনের খোঁজ করে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তাদের মধ্যে ২০ জনের নমুনায় করোনা পাওয়া গিয়েছে। ২০ জনের মধ্যে সাত জন ঐ তান্ত্রিকের পরিবারের লোক। তার সংস্পর্শে আসা বাকিদেরও কোয়রান্টিনে রেখেছে সেখানকার প্রশাসন।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় জেলার ডেপুটি কমিশনার রুচিকা চৌহ্বাণ জানিয়েছেন, তিনি মানুষকে অনুরোধ করেছেন যে, কেউ রোগ সারানোর দাবি করলে সেখানে যেন মানুষজন ছুটে না যায়। পাশাপাশি ঐ এলাকায় এ রকম কাজকর্ম আরও কেউ করছেন কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।