করোনা আতঙ্ক: বিক্রি বাড়াতে মুরগির সঙ্গে পেঁয়াজ ‘ফ্রি

করোনাভাইরাসের প্রভাবে মুরগি বিক্রেতাদের ব্যবসায় ভাঁটা পড়েছে। তাই তারা মুরগির সঙ্গে পেঁয়াজ ফ্রিতে দিচ্ছেন। যাতে মুরগির বিক্রি কিছুটা হলেও বাড়ে।

কিন্তু এরপরও ক্রেতারা মাংসের দোকান থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। ফলে ক্রমশই কমছে বিক্রিবাটা। ঘটনাটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের। খবর সংবাদ প্রতিদিন।

জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের কোলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলিসহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় গুজব রটেছে যে, মুরগির মাংসের মাধ্যমেও নাকি করোনাভাইরাস ছড়ায় ফলে সেখানকার বাসিন্দারা মাংস থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। এতে ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। ব্যবসায়ীদের দাবি, গত এক সপ্তাহে কমপক্ষে ৫০ থেকে ৬০ টাকা মুরগির মাংসের দাম কমেছে। এতে তারা আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বেন বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

পশ্চিমবঙ্গের সোদপুরের সুখচর বাজারে প্রায় বেশিরভাগ বিক্রেতাই দোকানের সামনে লাল কালিতে লেখা রেট চার্ট টাঙিয়ে দিয়েছেন। তাতে দেখা গিয়েছে, গোটা মুরগির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫ টাকায় এবং কাটা মাংস ১০০ টাকা কেজি দরে।

এছাড়াও ক্রেতাদের মন ফেরাতে মাংসের সঙ্গে ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে। তবে তাতেও মন ক্রেতাদের ভুলছে না।

ব্যবসায়ীদের দাবি, একটু লাভ হবে ভেবে কিছু ক্রেতা আসছেন ঠিকই। তবে তা খুবই কম। সিংহভাগ ক্রেতাই করোনাভাইরাসের আতঙ্কে মাংসের দোকানের ধারেও আসছেন না। তার ফলে লোকসান হচ্ছে প্রচুর টাকা। এভাবে চলতে থাকলে, ব্যবসা করা সম্ভব হবে না বলেই দাবি ব্যবসায়ীদের।