ছেলের খতনার মাংস কিনে বাড়ি ফেরা হলো না বাবার

ছেলের খতনার মাংস কিনে বাড়ি ফিরা হলো না বাবার

ছেলের খতনার অনুষ্ঠান। তাই বাজারে মাংস কিনতে গিয়েছিলেন বাবা রিপন প্যাদা (৩৮)। কিন্তু মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফেরার পথে মর্মান্তিক এক দুর্ঘটনায় মারা যান তিনি। নিমিষেই শেষ হয়ে যায় খতনার আনন্দ।

শোকের ছায়া নেমে আসে রিপন প্যাদার বাড়িতে।
গতকাল সোমবার পটুয়াখালী সদর উপজেলার লোহালিয়া-দশমিনা সড়কের গাজী বাড়ির সামনে মালবাহী একটি ট্রলি রিপন প্যাদার মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহত রিপন সদর উপজেলার লোহালিয়া এলাকার আলী মোস্তাকের ছেলে।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুজন। তারা হলেন মোটরসাইকেল চালক সাজু ও আরোহী শাহজালাল। আহতদের উদ্ধার করে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় মো. আলী হোসেন আরটিভি অনলাইনকে জানান, রিপন প্যাদার বাড়িতে তার ছেলের সুন্নতে খতনা অনুষ্ঠান ছিল। সকালে স্থানীয় শৌলা বাজারে মাংস কিনতে যান তিনি। বাজার শেষে মাংস ভ্যানগাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে মোটরসাইকেলে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন রিপন।

তাদের মোটরসাইকেলটি লোহালিয়ার গাজী বাড়ি অতিক্রমকালে একটি মালবাহী ট্রলি মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন।
নিহতের মরদেহ পুটয়াখালী সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।