তিন ঘন্টার ব্যবধানে সড়কে ১৪ লাশ

তিন ঘন্টার ব্যবধানে পাশাপাশি জেলায় দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত হয়েছে। উভয় দুর্ঘটনাই ঘটেছে মাজার জিয়ারত করতে যাওয়ার পথে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টা থেকে শুক্রবার ভোর ৬টার মধ্যে ব্রাহ্মনবাড়িয়া ও হবিগঞ্জ জেলা থেকে এই দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়। দুটি দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৯জন।

শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় যাত্রীবাহী মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো চ-১৯-৫১৬১) মহাসড়কের পাশে গাছের সাথে ধাক্কা খাওয়ার ঘটনায় ঘটনাস্থলেই ৮ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৫ জন।

নিহতদের মধ্যে সাতজন পুরুর ও একজন নারী। তবে হতাহত ব্যক্তিদের নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তবে তারা সবাই মাইক্রোবাসের আরোহী ছিলেন। আহত পাঁচ ব্যক্তিকে উদ্ধার করে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ও নবীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের উদ্ধার করেন। দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাসটি ধুমড়ে মুছড়ে যায়।

পুলিশ জানায়, মাইক্রোবাসটি নারায়ণগঞ্জ থেকে সিলেট যাচ্ছিল। মাইক্রোবাসের আরোহীরা সিলেটের হজরত শাহজালাল (রা.) মাজার জিয়ারত করতে যাচ্ছিলেন। কান্দিগাঁও এলাকায় পৌঁছার পর চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে মাইক্রোবাসটি সড়কের পাশে একটি গাছের সাথে প্রচণ্ড জোরে ধাক্কা খায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাসে আগুন ধরে ৬ জন দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। আহত হয়েছেন মাইক্রোবাসের ৪ আরোহী।

শুক্রবার ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপজেলার ভাটি কালিসীমা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে চারজনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন, সোহান (২০), সাগর (২২), রিফাত (১৬) ও ইমন (১৯)।

আহতরা হলেন, শাহিন (৩০), বিজয় (১৯), আবীর (১৯) ও জিসান (২৪)। তাদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা নারায়ণগঞ্জ থেকে মাজার জিয়ারতের উদ্দেশে সিলেট যাচ্ছিলেন।

খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম জানান, মাইক্রোবাসে করে ১০ জন নারায়ণগঞ্জ থেকে সিলেট মাজার জিয়ারতের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন। পথে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রামপুর এলাকায় সুনামগঞ্জ থেকে ঢাকার দিকে যাওয়া লিমন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষে হয়। এতে ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসের ছয় যাত্রী নিহত হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত চারজনকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও মাইক্রোবাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।