দুই বছর পর দেশে ফিরল ভারতে পাচার ১০ বাংলাদেশি কিশোরী

ভারতে পাচার হওয়া ১০ বাংলাদেশি কিশোরীকে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ। সোমবার (২ মার্চ) সন্ধ্যায় ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তাদের হস্তান্তর করে।

ফেরত আসা কিশোরীরা হলো- ঢাকার হাজারীবাগের ফাতেমা আক্তার (১২), শরীয়তপুরের রেশমা কামরুন খান (১৬), মাগুরার বর্ষা রাণী বিশ্বাস (১৭), খুলনার অথই বিনতে হেনা (১৪), রাজিয়া সুলতানা (১৫), হোসনে আরা বেগম (১৩), বগুড়ার ঋতুপর্ণা (১১), বাগেরহাটের জান্নাতুল ফেরদৌস (১০), শরীফা খাতুন (১৪) ও হবিগঞ্জের তানজিলা আক্তার (১৫)।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান কবির বলেন, ভালো কাজের আশায় দালালের খপ্পড়ে পড়ে দুই বছর আগে এসব মেয়েরা সীমান্তের অবৈধ পথে ভারতে যায়। সে দেশের বেঙ্গালুর শহরে বাসা বাড়ির কাজসহ বিভিন্ন কাজে থাকা অবস্থায় তারা পুলিশের হাতে আটক হয়। পরে আদালতের মাধ্যমে একটি এনজিও তাদের নবজীবন ও তালাশ নামের দুইটি শেল্টার হোমে রাখে। এরপর দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি চালাচালির একপর্যায়ে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হয়। ফেরত আসাদের বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, ফেরত আসা কিশোরীদের থানার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে যশোর রাইটস ও জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

যশোর রাইটসের এরিয়া কোয়াডিনেটর তৌফিক হোসেন ও জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের এবিএম মোহিত হোসেন জানান, ফেরত আসা কিশোরীদের যশোর নিয়ে সংস্থার নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখা হবে। পরে তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।