দুর্গাপুরে ৫ শিক্ষার্থী নিহতের পর ট্রাক-লরি বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে পিকনিক করতে গিয়ে ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষে পাঁচ এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কে বালু মহাল থেকে ট্রাক, লরি চলাচল বন্ধের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। রোববার সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের এই বিক্ষোভে যোগ দিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষও।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ময়মনসিংহের গৌরীপুরের হাজী আমির উদ্দিন ও ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটের ৪৫ জন শিক্ষার্থী ও তাদের ঘনিষ্ঠজনরা শনিবার নেত্রকোনার দুর্গাপুরে পিকনিক করতে যায়। তাদের বেশিরভাগই এসএসসি পরীক্ষার্থী। দিনভর সাদা মাটির পাহাড়, বিজয়পুরের পাহাড়ি টিলা ও সোমেশ্বরী নদীর বালু চর দেখে সন্ধ্যার পর খোলা পিকআপে গৌরীপুরে ফেরার পথে শান্তিপুর এলাকায় নেত্রকোনার শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কে তাদের পিকআপের সঙ্গে বালুবাহী ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে দুই শিক্ষার্থী এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও তিন শিক্ষার্থী মারা যায়। আহত হয় অন্তত ২০ জন। এ ঘটনার পর শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কে ট্রাক ও লরি চলাচল বন্ধের দাবিতে এই সড়ক অবরোধ করে রোববার বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, শনিবারের দুর্ঘটনার পর থেকেই শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কে ট্রাক ও লরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় লোকজন সড়ক অবরোধ করে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করছে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।