পিঁয়াজের কেজি ২০ টাকা, বিপাকে কৃষকরা

এক সপ্তাহের ব্যবধানে হঠাৎই পিঁয়াজের বাজারে ধস নেমেছে। এক সপ্তাহ পূর্বে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হলেও আজকের বাজারে ২০ টাকায় নেমে এসেছে। এতে করে অস্বস্তি প্রকাশ করছে কৃষকরা। শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) নাটোরের নলডাঙ্গা হাটে এই চিত্র দেখা গেছে। এতে পিঁয়াজ চাষিরা দিশে হারা প্রায়। কৃষকরা বলছেন, ভারত থেকে পিঁয়াজ আসার খবরে নাটোরের নলডাঙ্গা হাটে পিঁয়াজ পাইকারি প্রতিকেজিতে দাম কমল ৩০-৩৫ টাকা। এখন পাইকারি প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ২০-২৫ টাকায়। যা গত মঙ্গলবার হাটে প্রতিকেজি পিঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ৭০-৮০ টাকা দরে। সাধারণ ক্রেতাদের মধ্যে স্বস্তি ফিরলেও হঠাৎ এ দরপতনে হতাশ পিয়াজ চাষিরা।

অনেকদিন যাবত উচ্চ দাম থাকার পরে কৃষকরা ভেবেছিল এবার তারা গতবারের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবে। কিন্তু বাজারে এমন ধস নামায় তাদের ভেতর আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

বিক্রেতা আক্কাস আলী জানান, আজকে এত দাম পড়ে যাবে জানলে পিয়াজ ওঠাতাম না। আমাদের ধারণা ছিল পিঁয়াজের দাম সর্বোচ্চ ১৫ থেকে ২০ টাকা কমতে পারে। গত বছর ভরা মৌসুমে পাঁচ টাকা কেজি পিয়াজ বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছিলাম। এবার ভেবেছিলাম সেই ক্ষতিটা পুষিয়ে নিতে পারব।

আরেক কৃষক বশির উদ্দিন জানান, এবার কন্দ পিয়াজ উৎপাদনে খরচ অনেক বেশি পড়েছে। এবার পিয়াজের বীজ কিনতে ৭ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। সেই তুলনায় দাম কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে থাকলে কৃষক কিছুটা স্বস্তি পেতো। এদিকে বাজারে এক ক্রেতা স্বস্তি প্রকাশ করে বলেন, এতদিন পিয়াজ কম খেয়েছি। অনেক সময় পিয়াজ ছাড়াই তরকারি রান্না করতে হয়েছে। এই দাম থাকলে তাদের খুব একটা সমস্যা হবে না।