পেঁপে পাতায় হাজারো রোগের সমাধান!

দেশীয় ফলের মধ্যে পেঁপে বেশ সহজলভ্য আর স্বাস্থ্যকর। কাঁচা বা পাকা সব অবস্থায়ই এর পুষ্টিগুণ থাকে অটুট। তবে শুধু পেঁপেই নয়, এর পাতারও রয়েছে হাজারো স্বাস্থ্য উপকারিতা।
এক সমীক্ষা অনুসারে, পেঁপে পাতায় পেপেইন এবং চিমোপেইন নামক এনজাইম রয়েছে। যা একজন ব্যক্তির সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। এছাড়াও পেঁপে পাতায় রয়েছে ফাইটোকেমিক্যালস, ভিটামিন এবং খনিজ, ফ্ল্যাভোনয়েডস, ট্যানিনস, বিটা ক্যারোটিন, অ্যাসকরবিক অ্যাসিড, ক্ষারক, ফিনোলস, খনিজগুলোর মতো ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং ভিটামিন এ, সি, বি, কে। যা ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়াসহ নানা রোগের উপশম।

জেনে নিন পেঁপে পাতার উপকারিতাগুলো-


প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী প্রায় ৫০ থেকে ২০০ মিলিয়ন মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়। সমীক্ষা অনুসারে, পেঁপে পাতার নির্যাসে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ব্যাক্তিদের মধ্যে প্লাটিলেটের সংখ্যা বাড়াতে এবং জ্বর কমাতে সাহায্য করে।


; পেঁপে পাতা থেকে তৈরি চা বা রস পিএমএস উপসর্গ যেমন- মাথা ব্যথা, গাঁটের ব্যথা, বদহজম এবং বমি বমি ভাব নিরাময়ে সহায়তা করে। এছাড়াও এই চা পিরিয়ডের ব্যথা কমাতেও সহায়তা করে।


; একটি গবেষণা অনুসারে, পেঁপে পাতার রস ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা রাখে। বিশেষত ত্বকের ক্যান্সার। পেঁপের পাতাতে একটি শক্তিশালী সাইটোঅক্সিক প্রভাব থাকে। যা মানবদেহে ক্যান্সারের কোষকে মেরে ফেলতে সহায়তা করে।


; পেঁপের পাতায় কার্ডিওপ্রোটেক্টিভ বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যা ফিনোলিক যৌগের উপস্থিতির কারণে হার্টের সুস্থতা বজায় রাখে।


; পেঁপে পাতায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন ই লিভার ভালো রাখতে সাহায্য করে।


; পেঁপে পাতার রস ম্যালেরিয়ার চিকিৎসায় খুবই কার্যকরী।


; এছাড়াও এতে থাকা পেপেইন শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে।


; ডায়াবেটিস, জন্ডিস এবং সিরোসিসের মতো প্রদাহজনিত রোগ সারাতেও এ পাতার জুড়ি নেই। এতে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি। যা দেহের দীর্ঘস্থায়ী প্রদাহ নিরাময়ে সহায়তা করে।


; কোষ্ঠকাঠিন্য, পেটের ফোলাভাবসহ বদ হজম সারাতে পেঁপে পাতার রস খেতে পারেন।

১০
; পেঁপের পাতায় রয়েছে বিটা ক্যারোটিনের মতো অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস, পেপেইনের মতো এনজাইম এবং ভিটামিন এ ও সি। যা চুলের বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নতুন চুল গজাতেও সহায়তা করে।

এ পাতা চোখের ছানি প্রতিরোধ করতে পারে। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস, ভিটামিন বি, ভিটামিন এ, ফেনলিক যৌগ, ক্ষার কোষ, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং বিটা ক্যারোটিন। চোখের ছানি এবং বার্ধক্যজনিত চোখের নানা রোগ সারায়।

কীভাবে খাবেন পেঁপে পাতা?

পেঁপের পাতা দুটি উপায়ে ব্যবহার করা যেতে পারে: রস এবং চা।

পেঁপে পাতা ব্লেন্ডারে বা পাটায় বেটে রস করে খেতে পারেন। আবার পানিতে ফুটিয়ে চায়ের মতো করেও পান করতে পারেন।