মার্কিন নির্বাচন: রেকর্ডসংখ্যক মুসলিম প্রার্থীর বিজয়

আমেরিকার নির্বাচনে ডেমোক্রেট থেকে মনোনীত বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে রেকর্ড মুসলিম প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। প্রথম বারের মতো নতুন পাঁচ মুসলিম বিজয়ী হয়ে ইতিহাস তৈরি করেছে। মুসলিম নারীরাও রয়েছে বিজয়ীদের কাতারে।

ওকলাহোমা অঙ্গরাজ্য থেকে প্রথম মুসলিম হিসেবে বিজয়ী হন মৌরি টার্নার। দিলাওয়ারা থেকে প্রথম মুসলিম হিসেবে মদিনাহ উইলসন এন্টোন বিজয়ী হন। কলোরাডো থেকে প্রথম মুসলিম হিসেবে হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে বিজয় অর্জন করেন ইমান জোদেহ। উইসকোনসিন রাজ্য থেকে কৃষ্ণাঙ্গ ও ‍মুসলিম হিসেবে প্রথম বারের মতো বিজয়ী হন সামবা বালদেহ। ফ্লোরিডা রাজ্য থেকে সানসাইন অঙ্গরাজ্য থেকে ক্রিস্টোফার বেনজামিন প্রথম মুসলিম হিসেবে নির্বাচিত হন। ডেমোক্রেট থেকে মুসলিমদের এ বিজয় নিঃসন্দেহে অবিস্মরণীয়।

হাফপোস্টকে বিজয়ী হওয়া প্রসঙ্গে উইলসন এন্টন বলেন, তাঁর বিজয় ‘সমাজকে এ বার্তা দেয় যে আমরাও এ দেশের অংশ। এখানে আমরা প্রথম প্রজম্ম নাকি আফ্রিকান দাস বংশোদ্ভূত কেউ তা এখানে বিষয় নয়। আমরা সবাই এই দেশের অংশ।’

গাম্বিয়া বংশোদ্ভূত সামবা বালদেহ বলেন, ‘প্রথম মুসলিম হিসেবে রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত হওয়া অবশ্যই উত্তেজনাকর মুহূর্ত। এমন সুযোগের জন্য আমি অবশ্যই কৃতজ্ঞ। নানামুখী চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি আমি। আমার অঞ্চলের সেবার করার সুযোগ গ্রহণে আমি খুবই আগ্রহী। তবে কেবল আমার নির্বাচন কেন্দ্রিক নয়, বরং মুসলিম, আফ্রিকান ও নানা বর্ণের প্রতিনিধিত্ব করতে চাই।’

বিজয়ী হয়ে ক্রিস্টোফার বেনজামিন বলেন, ‘এই নির্বাচন এক দীর্ঘ ভ্রমণের অংশ। কৃষ্ণাঙ্গদের ঐতিহাসিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যাল ফ্লোরিডা মেমোরিয়াল বিশ্ববিদ্যালয়ের আমি স্নাতক শিক্ষার্থী থাকাকাল থেকে আমি এর জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকি। সেখানে আমার মেজর বিষয় ছিল রাষ্ট্রবিজ্ঞান। এটি ওই যাত্রার একটি দুর্দান্ত সমাপ্তি। এতে ইতিহাস তৈরি করা এখন প্রায় সম্ভবপর।’

সরকারি পদে প্রার্থী হওয়া আমেরিকান মুসলিমদের প্রশিক্ষণদানকারী প্রতিষ্ঠান জাস্টিস অডুকেসন টেকনোলজি অ্যাডভোকেসি সেন্টার (জেইটিপিএসি)-এর পরিচাল মুহাম্মদ মিসাউরি বলেন, ‘তাঁরা আমেরিকার মুসলিম নেতৃবৃন্দের নতুন প্রজম্ম। তারা নানা উদ্যোগের মাধ্যমে সমাজ পরিবর্তনে ভূমিকা পালন করছে।’

মুহাম্মাদ মিসাউরি আরো বলেন, ‘মুসলিম নারী কর্মী, রাজনীতিবিদরা আমাদের স্বাস্থ্যসেবা, ফৌজদারি আইন, অভিবাসন নীতি ও আমেরিকার জীবনকে প্রভাবিত করে এমন সব ইস্যুতে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় লড়াই করে যাচ্ছে। এটি আমেরিকা ও পুরো বিশ্বে ইসলামভীতির সহিংস উত্থান প্রতিহত করতে সহায়তা করবে।’

এছাড়া দ্বিতীয় বারের মতো ফের কংগ্রেস প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচনে জিতেছেন ইলহাম ওমর ও রাশিদা তালিব।

সূত্র : হাফপোস্ট