মালয়েশিয়ায় করোনায় প্রাণ গেল দুজনের, আক্রান্ত ৬৭৩

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মালয়েশিয়ায় প্রথমবারের মতো দুই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয় বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে মালয়েশিয়ার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, মালয়েশিয়ার সারাওয়াক জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ৬০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি সারাওয়াকের কুচিং এমানুয়েল ব্যাপটিস্ট চার্চের যাজক ছিলেন। তবে তিনি কীভাবে আক্রান্ত হয়েছিলেন তা এখনও তদন্তাধীন রয়েছে। তার সংস্পর্শে আসা ১৯৩ জনকে নিজ নিজ বাড়িতে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে।

করোনায় মৃত আরেকজন শ্রী পেতালিং তাবলীগ জামাতে অংশ নেয়া ৩৪ বছর বয়সী ব্যক্তি। গত কয়েক দিন আগে তার শরীরে করোনা ধরা পড়ে। জহুরবারু পারমাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। গত ১২ মার্চ তার অবস্থার অবনতি ঘটলে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার মৃত্যুবরণ করেন।

মালয়েশিয়ায় এখন পর্যন্ত ৬৭৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৪৫ জন সারাওয়াকের বাসিন্দা। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে দেশব্যাপী ‘লকডাউন’ ঘোষণা করেছে মালয়েশিয়া সরকার। সোমবার (১৬ মার্চ) স্থানীয় সময় রাত ১০টায় জাতির উদ্দেশে এক ভাষণে প্রধানমন্ত্রী তান শ্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন এ ঘোষণা দেন।

এদিকে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মালয়েশিয়াকে লকডাউন ঘোষণার কারণে দেশটির বিমানবন্দরে মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রাত থেকে ফ্লাইট অপারেশন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। সে কারণে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর রুটে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সও।

চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ১ লাখ ৮৭ হাজার ৩৫৫ জন আক্রান্ত হয়েছে। এতে মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৪৭৭ জনের। ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছে।