মেয়েদের উত্তেজিত করার সহজ উপায়

মেয়েদের উ’ত্তেজিত না করে যৌ’ন মিলন করলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সেই মিলন সফল হয় না। স’হবাসে লিপ্ত হওয়ার আগে অবশ্যই উচিত মেয়েদের উ’ত্তেজিত করা,

তাহলেই একমাত্র সফল সে’ক্স সম্ভব। মেয়েদের উ’ত্তেজিত করার বেশ কিছু পদ্ধতি বা টিপস আছে, চরুন মেয়েদের উ’ত্তেজিত করার সেই টিপসগুলো স’ম্পর্কে জেনে নিই।

মেয়েদের উ,ত্তেজিত করা বা স্ক্স‌ এর জন্য রেডি করা বা হ,র্ণি করার জন্য প্রথমে যে প,দ্ধতিটা প্রয়োগ করা উচিত বা করবেন

তা হল স্প,র্শ। এটিকে শুনতে যেন তেন ব্যপার মনে হলেও এটি খুবই গুর্ত্ব‌পূর্ণ। ঠিকমত স্প,র্শ করতে পারলে আপনি খুব সহ’জেই কোনো মেয়েকে উ,ত্তেজিত বা কামুকি (সে,ক্সের জন্য তৈরী) করে তুলতে পারবেন।

প্রথমে অবশ্যই আপনাকে আপনার মনের মধ্য থেকে ভ,য় টা দূর করতে হবে। মনে ভ,য় থাকলে কোন নারেীকে উ,ত্তেজিত করা অনেক কঠিন হয়ে যাবে। যার সাথে করার উদ্দে,শ্য আপনার, তাকে আপনি বিভিন্ন সময় টাচ করুন।এটি কিন্তু নরমাল

হাত ধ’রা না।কোন মেয়েকে উ,ত্তেজিত করার ক্ষেত্রে চেষ্টা করবেন কাঁধের দিকটায় বেশি ধ’রার। ধরে রেখে দিতে হবে এমন না, ধরুন – ছাড়ুন। বিভিন্ন কথা প্রস,ঙ্গে, অবচেতন ভাবে ভান করে ধরুন।

খুব ভাল হয় যদি দু – তিন বার পিঠের দিকের ব্রা টা স্প,র্শ করেন জামা’র উপর দিয়ে।কোন মেয়েকে উ,ত্তেজিত করতে এটি তাকে যথে,ষ্টই হ,র্নি করবে।এসময় যদি একটু ফ্লা,র্ট করেন তাহলে আরো ভাল হয়। মেয়ের সাথে ভাল ফ্রে,ন্ডলি রিলেশন থাকলে গালে

কি,স ( First Kiss- প্রথম চু,ম্বন সম্প,র্কে জেনে নিন )করবো ইত্যাদি মজা করার স্টা,ইলে বলেও তাকে নিজের দিকে টান দিন।আরো পড়ূন,একজন মানুষ কতটা লম্বা হবে তা নির্ভর করে জিনের উপর।

তবে এর পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাস, জীবনযাত্রা এবং শরীরচর্চার মতো বিষয়গু’লিও গুরুত্বপূর্ণ। তাই শি’শুর শারীরিক বৃদ্ধির জন্য খেয়াল রাখু’ন তার খাবারের তালিকায়ও। বর্তমান ব্যস্ত সময়ে শি’শুর বায়না মেনে চলতে গিয়ে তাকে ফাস্ট ফুডে অভ্যাস্ত করে

ফেলছেন অনেক মা-বাবাই। এটি শি’শুর বৃদ্ধির ক্ষেত্রে মা’রাত্মক প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারে। তাই শি’শুর পাতে দিন পুষ্টিকর ও ঘরে তৈরি খাবার।

জেনে নিন কোন খাবারগুলো খেলে শি’শু দ্রুত লম্বা হবে-মাছ: শি’শুকে ছোট মাছ বেশি খাওয়ান। অভ্যাস করুন নিজের হাতে কাঁ’টা বেছে খাওয়ার।

মাছ খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। শি’শুর উচ্চতাও বাড়বে দ্রুত।ডিম ও মুরগি: মাংসপেশির গঠনেও প্রোটিনের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। শি’শুর খাবার তালিকায়

রাখু’ন ডিম। বিশেষ করে ডিমের সাদা অংশ এবং সেদ্ধ বা গ্রিলড চিকেন। শারীরিক বিকাশে প্রোটিন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। প্রা*ণিজ প্রোটিন সাহায্য করে দেহের নতুন টিস্যু গঠনে এবং ক্ষতিগ্রস্ত টিস্যু তৈরি করতে।

সবুজ শাকসবজি: শি’শুদের ভালো রাখতে তরিতরকারির কোনো বিকল্প নেই। শি’শুর খাবার তালিকায় যতটা বেশি সম্ভব শাক-সবজি রাখু’ন। আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন কে, ভিটামিন বি, ভিটামিন এ এবং অন্যান্য খনিজে ভরপুর তরকারি শি’শুর

বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয়।সয়াবিন: আপনি যদি নিরামিষাশী হন, তা হলে প্রোটিনের জন্য খেতেই হবে সয়াবিন। শি’শুদেরও ছোট থেকে সয়াবিন খাওয়ানোর অভ্যাস তৈরি করুন।

স্বাদের দিক দিয়ে মাংসের কাছাকাছি হওয়ায় শি’শু অনেকসময় সয়াবিন খেতে পছন্দ করে।ডাল: শি’শুকে নানারকমের ডাল খেতে অভ্যস্ত করে তুলুন। একেকদিন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে একেকরকম ডাল রাঁধুন। এমনকী’’ দুই-তিন রকম ডাল মিশিয়েও এক্সপেরিমেন্ট করতে পারেন।ফল: শি’শুকে

মৌসুমী ফলসহ সবরকম ফল খেতে দিন। ফলের রসের বদলে শি’শুকে আস্ত বা কা’টা ফল কামড়ে খেতে দিন। এতে পুষ্টিকর ফাইবার ডায়েট থেকে বাদ পড়বে না।

দাঁতের গঠনও ভালো হবে।দুধ: মাংসপেশির গঠন এবং হাড় মজবুত করার জন্য দুধের কোনো বিকল্প নেই। ক্যালসিয়াম, প্রোটিন এবং ভিটামিন ডি-এর মূল উৎস দুধ।

শুধু দুধ খেতে না চাইলে পুডিং, কাস্টার্ড, মিল্কশেক, চিজ, নিদেনপক্ষে ট’ক দই রাখু’ন শি’শুর খাবার তালিকায়।